ই- ম্যাগ ১৯ শে জানুয়ারী ২০১৪

Posted: January 19, 2014 in Uncategorized

                ই- ম্যাগ ১৯ শে জানুয়ারী ২০১৪                      সংখ্যা-২

 

                                                 কবিতা

             বলতে চাই…

                    দীপশিখা দত্ত

 

অনেক রাতে আকাশে চাদ ওঠে

একরাশ মনখারাপ গলায় দলা পাকায়,

সদ্য সমাপ্ত “আমরা তিন প্রেমিক ও ভুবন”, প্রজত্নে বিমল কর

মনের প্রেম-প্রশ্নের ঝর সামলাতে চোখ বৃষ্টি নামায় ।

পাশে রুমমেট ঘুম চোখে বলে “কি বস্ মাঝরাতে চোখে জল”

“আজ বুঝলাম সত্যিকাকের ভালবাসা কি, তার সামনে…”

কথা শেষ হল না বন্ধু ওপাশ ফিরে বলল –

ওসব গল্গেই চলে বুঝলি

শুয়ে পর…

 

     এসো তবে

                 রুমকি রায় দত্ত 

এলোমেলো মেঘের মাঝে
মুক্ত বিহঙ্গ তোমার মন
না যায় ধরা,না যায় ছোঁয়া ৷
গঙ্গাসাগর মেলায় হারানো, 
বিকেলের দিনগুলি ফিরে ফিরে আসে ৷
সেদিন বসেছিলাম সাগরের বুকে পা রেখে,
তুমিও বসলে এসে পাশে ৷
বললে,এসেছো নিতে বিদায় ৷
মুন্ডিত মস্তক,পরনে নেংটি শুধু ৷
তোমাকে অদেয় কিছুই ছিলনা,মুক্তি ছাড়া ৷
বলেছিলাম এসো তবে,
আমি হাজার বছর প্রতীক্ষা করতে পারি ৷

হৃদভূমে জন্ম নেবে কি ইচ্ছার বর্ণমালা

                              উদয় শংকর দুর্জয়

 

কি মমতায় বেঁধে ফেলেছো।

তবে কি আবার মন পাখি খুঁজবে আলো

আলোর শেষে।

 

একদিন রূপালী বর্ষা ধারা

নামবে তেপান্তরের বিলে, সে লিলুয়া হাওয়ায়

কান্ত ছায়ায় রৌদ্র পোড়া গন্ধ মুছে ফেলে

আবার বুকের টেনে নেবে। বলবে

নীল মাখ প্রিয় দু’হাতে। বিশ্বস্ত চোখে

যে ঢেউ জেগে উঠতো গোপনে, সেখানে গভীরে নামো আরো গভীরে।

 

রাতভোর গল্প হবে, আবার বিষন্নতা কাটিয়ে

লেকের ধারে আবৃত্তির আয়োজন জুড়ে

থাকবে নিরূপম প্রার্থনা।

 

আবার সুরের পাখি ঝরাবে পালক

আমি পড়ব ধারাপাত তুমি খুঁজবে অরণ্য চোখে।

দু’হাতে কুড়াবো রাশি রাশি শিউলি

ঘাস ফুলে ভরা আঁচল ছেড়ে

প্রিয় ঘ্রাণ মেখে নিও, আবার

শারদ সন্ধ্যায় প্রদীপ জ্বলবে

এই নিপবন এই গড়ের মঠকে স্বাী মেনে।

 

কিন্তু মনকে চিনি ভালো করে

সে কোষে জাগবেকি স্পন্দ

দীপালী আলোয় হৃদভূমে জন্ম নেবে কি

ইচ্ছার বর্ণমালা। 

 

                                                   অণুগল্প                       

                                                                        

                                                                           সুশান্ত 

  দেবশ্রী ভট্টাচার্য

 

 

 সুশান্ত কই? ওকে ছাড়া আসর জমে না কী? ওর কবিতা তো আছেই,তার চেয়েও বড় ওর বিদঘুটে কাণ্ডকারখানা।কোনদিন শশ্মান থেকে মড়ার মাথার খুলি তুলে আনবে প্ল্যানচেট করবে বলে…।এমন কত কী।

              -নিচে দেখলাম একটা ভিকিরিকে কিসব বলছে…। অজয় বলল। সবাই তাকালাম নিচে..।। ঐ আসছে…।

              -হ্যাঁ রে কোথায় ছিলি?

              -ওই নিচে এক ভদ্রমহিলা…।

              -ভদ্রমহিলা কিরে… আমি ত দেখলাম ভিকিরি…  

              -কেন ? ভিকিরি বলে কী ভদ্রমহিলা নয় ?

              -টাকা নিয়েছে তো? এবার অখিল বলল।

              -হ্যাঁ বলল ছেলের অসুখ …তাই দশ টাকা …

            এবার আমি বললাম –তা বাড়ী ফিরবি কি করে?

              অম্লান বদনে হেসে জবাব দিল – কেন হেঁটে!  

–  শ্যামবাজার থেকে ডানলপ হেঁটে!                     

 

 

 

Advertisements
Comments
  1. দ্বীপ সরকার says:

    বন্ধু#

    বন্ধু তুমি হেঁটে যাও
    খড়ম পায়ে মনের গাঁও
    শব্দ বুনে প্রেম কথা
    আমায় দুটা শুনে দাও

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s